World News
Trending

পুজোয় বন্ধ টিকাকরণ, জানাল পুরসভা

শহরে বন্ধ করোনার টিকাকরণ! ১২ থেকে ১৫ অক্টোবর পর্যন্ত এই নির্দেশিকা বলবৎ থাকবে। এই প্রসঙ্গে পুরসভার স্বাস্থ্যবিভাগের দায়িত্বপ্রাপ্ত প্রশাসকমণ্ডলীর সদস্য অতীন ঘোষ বলেন, ১২ থেকে ১৫ অক্টোবর অর্থাৎ পুজোর সময় টিকা পাবেন না কলকাতার বাসিন্দারা।

এ প্রসঙ্গে চিকিৎসক কাজলকৃষ্ণ বণিক বলেন, “করোনা মোকাবিলা সকলের সহযোগিতা ও অংশগ্রহণের মধ্যে দিয়েই করতে হবে। টিকাকরণ করোনা মোকাবিলার অন্যতম শ্রেষ্ঠ হাতিয়ার এ নিয়ে কোনও সন্দেহ নেই। সেই কাজটা যদি বন্ধ রাখা হয়, তাও আবার টানা চারদিন তাহলে তো সমস্যা হতেই পারে। আমরা বলছি যত কম সময়ের মধ্যে সম্ভব মানুষকে টিকা দিতে। অথচ চারদিন ধরে কলকাতা শহরে টিকাকরণ বন্ধ থাকবে। অথচ অন্যান্য কাজ হবে, সেটা না হলেই ভাল হয়। আমাদের লক্ষ্য যত বেশি সংখ্যক মানুষের মধ্যে প্রতিরোধ ক্ষমতা তৈরি করা যায়।”

বাঙালির শ্রেষ্ঠ উৎসব দুয়ারে। দ্বিতীয়া বা তৃতীয়াতেই যে ভিড় শহরের পুজো মণ্ডপগুলিতে দেখা গিয়েছে, তাতে বলা ভাল উৎসব শুরু হয়ে গিয়েছে। যেহেতু সপ্তাহান্তে অর্থাৎ শনি-রবি চতুর্থী ও পঞ্চমী। তাই উৎসবমুখর বাঙালি আর সপ্তমী, অষ্টমী, নবমীর জন্য অপেক্ষা করতে চাইছে না। অন্তত তৃতীয়ার ঢল সে কথাই বুঝিয়ে দিয়েছে।

এদিকে এই বিপুল জমায়েতের ভিড়ে চুপি চুপি বেড়ে চলেছে করোনার সংক্রমণও। কলকাতা তো বটেই, শহরতলী ও জেলাতেও ক্রমশই আক্রান্তের সংখ্যা বাড়ছে। শুক্রবার রাজ্য স্বাস্থ্য দফতরের প্রকাশিত তথ্য অনুযায়ী , একদিনে আক্রান্ত হয়েছেন ৭৮৪ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় মৃত্যু হয়েছে ৬ জনের। কলকাতাতেই আক্রান্ত ১৫৮ জন। উত্তর ২৪ পরগনায় আক্রান্তের সংখ্যা ১২৮ জন। এরপরই রয়েছে হাওড়ার নাম। একদিনে ৬৮ জন সংক্রমিত হয়েছেন এই জেলায়।

এদিকে পুজোর কয়েকদিন যে হারে মানুষের ভিড় বাড়বে তাতে এই সংক্রমণটা যে আরও অনেকটাই ঊর্ধ্বমুখী হবে, তা সহজেই অনুমান করা যাচ্ছে। এরই মধ্যে পুজোর চারদিন করোনার টিকা দেওয়া বন্ধ রাখার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কলকাতা পুরসভা। যদিও তারা বলছে পুজোয় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চললে বিপদ অনেকটাই এড়ানো সম্ভব। তবুও চিন্তার মেঘ জমছে সাধারণ মানুষের মনে ও চিকিৎসক মহলে।

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Back to top button